হযরত আয়াতুল্লাহ্‌ আল্‌ উজমা হাজ সাইয়েদ আলী হুসাইনী আল খামেনেঈ

তিনি ফেকাহ্‌ ও ইলমে রিজালের উপর সুযোগ্য পন্ডিত হওয়া সত্তেও, সাহিত্য ও ইতিহাসের ক্ষেত্রে যুগের বিষ্ময়কর ব্যক্তি। বর্তমানে সমাজের সুকঠিন নেতৃত্বের দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি সর্বোচ্চ পর্যায়ের ফেকাহ্‌গত দরসে খারেজের ক্লাস নিচ্ছেন। শুধু তাই নয়, যুগপোযোগী অনেক বিষয়ের বিভিন্ন গ্রন্থ রচনা করেছেন।

জন্ম ও বংশ পরিচয়

ফার্সি ১৩১৮ সনে একটি ধর্মীয় পরিবারে পবিত্র মাশহাদ নগরীতে জন্ম গ্রহন করেন। তাঁর পিতা আয়াতুল্লাহ্‌ আকা সাইয়েদ যাওয়াদ মাশহাদের আলেমদের মধ্যে প্রশিদ্ধ একজন মুজতাহীদ ছিলেন। আর তাঁর দাদা আয়াতুল্লাহ্‌ সাইয়েদ হুসাইন খামেনাঈ আজারবাইজানের বিখ্যাত আলেম এবং নাজাফের বাসিন্দা ছিলেন। তার শিশুকাল বেশ কষ্টের মধ্যে অতিবাহিত হয়।

শিক্ষা জীবন

পাঁচ বছর বয়সে তিনি প্রাথমিক ইসলামী বিদ্যালয়ে [দারুল তালিম-এ দ্বিয়ানাতী] যান। সেখান থেকে তিনি ষষ্ট শ্রেণীর সার্টিফিকেট নিয়ে উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ভর্তি হন। উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয় দু‘বছরেই পরিসমপ্তি করে ডিপ্লমা সার্টিফিকেট গ্রহণ করেন। তিনি ধর্মীয় শিক্ষার ‘লুমা’ গ্রন্থের চার ভাগের তিন ভাগ নিজ পিতার নিকট অধ্যায়ন করেন এবং অবশিষ্ট অংশ আকা মির্জা আহমাদ মুদারেরেস তাবরীজির নিকট পড়েন। আর রেসায়েল মাকাসিব গ্রন্থটি হাজ শেইখ হাশেম ক্বাজবীনির নিকট থেকে শিক্ষা গ্রহণ করেন। এভাবে তিনি সাড়ে পাঁচ বছরের মধ্যে প্রথমিক স্তর গুলো সমাপন করেন।

অতঃপর আয়াতুল্লাহ্‌ আল্‌ উজমা মিলানীর দরসে খারেজে উপস্থিত হন। হিঃ ১৩৩৬ সনে তিনি নাজাফে যাত্রা করেন। এখানে তার সল্পকালীন অবস্থান কালে, মহান আলেম, হাকীম, খুইয়ী, ও শাহরুদী থেকে উপকৃত হন। এর পর নাজাফ থেকে ইরান ফিরে এসে আয়াতুল্লাহ্‌ আল উজমা বুরুর্জেদী, হাজ আকা মূর্তজা হায়েরী এর ক্লাস থেকে যথেষ্ট উপকৃত হন। একই সাথে ইমাম খোমেনী (রঃ) এর ফেকাহ্‌ ও উসুলের ক্লাসেও অংশ গ্রহণ করেন।

রাজনৈতিক জীবন

তিনি ১৩৩৪ সন থেকে পাহলাভী সরকারের বিরুদ্ধে সংগ্রাম শুরু করেন এ জন্যেই ইসলামী বিপ­বের পূর্ব পর্যন্ত বহুবার বিভিন্ন অভিযোগে কারাজীবন ও নির্বাসন জীবন ভোগ করেন । ইরানের ইসলামী বিপ­ব বিজয়ের পর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেন। বিপ­ব পরিষদের সদস্যপদ, জাতীয় সংসদের সদস্যপদ, প্রতিরক্ষা মন্ত্রলায়ের, প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর সচিব, তেহরানের জুমআ ইমাম, তেহরান হতে সংসদ সদস্য, দু‘বার রাষ্ট্র নায়ক হিসেবে নির্বচিত হন। পরিশেষে ইরানের ইসলামী বিপ­বের মহান নেতা হযরত ইমাম খোমেনী (রঃ) এর মৃত্যুর পর তাঁর জ্ঞান বুৎপত্তিক শক্তি, বিচক্ষণতার ভিত্তিতে ইরানের ইসলামী বিপ­বের নেতা হিসেবে নির্বাচিত হন এবং আজোবধি তিনি এই মহান দায়িত্ব পালন করে আসছেন।